Home অপরাধ ঈশ্বরদীতে বিএনপির গণসংযোগের প্রস্তুতিতে হামলা-ভাংচুর, আহত ৮
অপরাধ - জাতীয় - সর্বশেষ খবর - ডিসেম্বর ২৬, ২০১৮

ঈশ্বরদীতে বিএনপির গণসংযোগের প্রস্তুতিতে হামলা-ভাংচুর, আহত ৮

পাবনার ঈশ্বরদীতে বিএনপি প্রার্থী ও দলটির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব তার সমর্থক ও কর্মীদের নিয়ে নির্বাচনী প্রচার শুরু করার সময় হামলার শিকার হয়েছেন।

বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে শহরের আলহাজ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে নির্বাচনী প্রচারণা শুরুর প্রস্তুতিকালে দুর্বৃত্তরা হাবিবের ওপর হামলা চালায়।

হামলায় আহত হয়েছেন কমপক্ষে আটজন। হাবিবের নির্বাচনী বহরের ৫টি মাইক্রোবাসও ভাংচুর করা হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, হাবিব তার কর্মী সমর্থকদের নিয়ে শহরে গণসংযোগের প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। এসময় ১০-১২ জন মোটর সাইকেল নিয়ে সেখানে অতর্কিত হামলা চালায়। হাবিবের হাত-পা সহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে এলাপাতাড়ি কুপিয়ে তাকে ফেলে দেয় দুর্বৃত্তরা। এসময় হাবিবকে বাঁচাতে এগিয়ে এলে তার কয়েকজন কর্মী সমর্থকরাও ছুরিকাঘাতে আহত হন।

হাবিব ছাড়া আহত অন্যান্যরা হলেন-আহসানুল ইসলাম রিপন, বাচ্চু, সরদার আতাউর রহমান, রিপন, বরকত আলী, বীর হোসেন, রমজান আলী ও ভোলা।

আহত পাবনা জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সহ-সাধারণ সম্পাদক বরকত আলী জানান, নেতা-কর্মীরা রক্তাক্ত হাবিবকে উদ্ধার করে পাশের একটি বাড়িতে নিয়ে যায়। পরে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়।

ঈশ্বরদী হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. শফিকুল ইসলাম শামিম বলেন, আহত হাবিবের শরীরের বিভিন্ন স্থানে ছুরিকাঘাত করা হয়েছে। আঘাতগুলো গুরুতর হওয়ায় তাকে পাবনা, রাজশাহী অথবা ঢাকায় উন্নত চিকিৎসার জন্য রেফার্ড করা হয়েছে।

ঈশ্বরদী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জহুরুল হক, ঈশ্বরদী থানার ওসি বাহাউদ্দিন ফারুকীসহ পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থল ও ঈশ্বরদী হাসপাতাল পরিদর্শন করেছেন।

পুলিশের পক্ষ থেকে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জহুরুল হক বলেন, বিএনপির প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিবের ওপর কারা হামলা করেছে তা খতিয়ে দেখতে পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ কাজ করছে। তথ্য প্রমাণ পেলে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এদিকে ঘটনার জন্য ছাত্রলীগ ও যুবলীগকে দায়ী করে বিএনপির প্রার্থী হাবিব অভিযোগ করে করে বলেন, আমাদের শান্তিপূর্ণ গণসংযোগে ছাত্রলীগ ও যুবলীগের নেতা-কর্মীরা হামলা চালিয়েছে।

তবে এ অভিযোগ অস্বীকার করে ঈশ্বরদী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান মকলেছুর রহমান মিন্টু বলেন, ঈশ্বরদী বিএনপিতে সিরাজ-হাবিব দ্বন্দ্ব দৃশ্যমান। কয়েকদিন আগে উপজেলা ও পৌর বিএনপি যৌথভাবে হাবিবুর রহমান হাবিবের বিরুদ্ধে ঝাটা মিছিল বের করে, তার কুশপুত্তলিকা দাহ এবং তাকে ঈশ্বরদীতে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করে। তাদের দলের লোকেরাই হাবিবের ওপর হামলা করেছে। এর সাথে ছাত্রলীগ-যুবলীগ কোনভাবেই জড়িত নয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Check Also

মিলেছে তুরস্কের ছাড়পত্র: এবার মুখ খুলল রাশিয়া

ফিনল্যান্ড ও সুইডেনের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসীদের মদদ দেওয়ার অভিযোগ তুলে তুরস্ক দেশ দুটির মার্কি…