Home Uncategorized জাতীয় শ্রমিকলীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের কমিটি, মানি না এর প্রতিবাদে সমাবেশ |
Uncategorized - রাজনীতি - ফেব্রুয়ারি ১১, ২০২১

জাতীয় শ্রমিকলীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের কমিটি, মানি না এর প্রতিবাদে সমাবেশ |

রবিউল ইসলাম রবিনঃ

আমরা ঢাকা মহানগর দক্ষিণের ২৪ থানার নেতৃবৃন্দ বঙ্গবন্ধু আদর্শে ও প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার অব্যাহত উন্নয়নের হাতকে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে প্রতিটি থানা থেকে রাজনৈতিকভাবে ১/১১ আন্দোলন সহ বিএনপি জামাতের জালাও পোড়াও আন্দোলন প্রতিহত করা সহ সকল আন্দোলন সংগ্রামে নিয়োজিত আছি। কিন্তু অত্যন্ত দুঃখের বিষয় এই যে, জাতীয় শ্রমিকলীগ, ঢাকা মহানগর, দক্ষিণের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি, এ বিএম শফিউল আলম ভুলু ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক, মোঃ হারুন অর রশীদ এর বিরুদ্ধে চরম স্বেচ্ছাচারিতা ও নেতৃত্বহীণ অভিযোগগুলো তুলে ধরা হলো। বিদ্যমান মহামারী করোনা ভাইরাস এ লকডাউনে ক্ষতিগ্রস্ত শ্রমিকলীগের থানা পর্যায়ে সরকারিভাবে ও দলীয়ভাবে বরাদ্দকৃত অনুদানের সকল আর্থিক সাহায্য থানা ওয়ার্ড ভিত্তিক কাউকে প্রদান করা হয়নি অথচ প্রতিটি থানা ওয়ার্ডের আইডি কার্ড ও আবেদনের ফর্ম কম্পিউটারে টাইপ করে পূরণ করার জন্য ব্যয়বহুল খরচ করা হয়। অনুরূপভাবে গত মেয়র নির্বাচনে দলীয় পর্যায় থেকে বরাদ্দকৃত সকল খরচাদি দেয়া হয়নি। তারই ধারাবাহিকতায়, বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন শ্রমিকলীগ নেতার মৃত্যুর জন্য প্রতিটা থানা থেকে মিলাদের জন্য অর্থ আদায় আত্মসাৎ এবং মহানগরের অফিসের জন্য চেয়ার ক্রয় করা ও বিভিন্ন সভা-সমাবেশে পোষ্টার লাগানোর জন্য বিভিন্ন থানা থেকে সংগ্রহীত অর্থ আত্মসাৎ। আরো উল্লেখ্য যে, কেন্দ্রীয় নির্দেশ অমান্য করে বিদ্যমান থানা পর্যায়ের অনুমোদিত কমিটি বাদ দিয়ে নিজেদের ইচ্ছামত কোন কোন থানার সভাপতি সাধারণ সম্পাদক থাকা সত্তেও দেখা যায় যে, ৭নং সহ সভাপতিকে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি করে নতুন পেেকট কমিটি দেওয়া হয়। প্রকাশ থাকে যে, গত ১১/০৩/২০২০ইং তারিখে ঢাকা মহানগর দক্ষিণের ২৪ থানার পক্ষে জাতীয় শ্রমিকলীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের নেতৃত্ব পাওয়ার জন্য ইতিমধ্যে কেন্দ্রীয় কমিটি বরাবর একটি আবেদন দাখিল করা হইয়াছে। গত ১৮/০৭/২০২০ইং তারিখে জাতীয় শ্রমিকলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক একেএম আযম খসরু স্বাক্ষরিত জারিকৃত একটি নোটিশে বলা হয়েছে সকল জাতীয় শ্রমিকলীগের মহানগর কমিটি ও থানা ওয়ার্ড ইউনিট কমিটি আগাী সম্মেলন না হওয়া পর্যন্ত নতুন কমিটি দেয়া, ভাঙ্গা ও রদবদল করা যাবে না অথচ ইতিমধ্যে দেখা যায় পূর্ণাঙ্গ কমিটি থাকা সত্তেও ডেমরা, পল্টন কদমতলী ও মুগদা থানায় ইচ্ছামত একটি কমিটি দেয়া হয়েছে। ইহাতে আমরা মনে করিতেছি যে, উক্ত মহানগর দক্ষিণের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এবিএম সফিউল আলম ভুলু ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মোঃ হারুন অর রশীদ তাদের স্বার্থ হাসিল করার লক্ষে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের রাজনীতি বেচাকেনা শুরু করেছে। আরও হুমকি প্রদান করে যে, যারা প্রতিবাদ করবে তাদের জামাত বিএনপির নেতা বানিয়ে বহিস্কার করা হবে। উল্লেখ্য যে, উক্ত বিক্ষোব সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় শ্রমিক লীগ যাত্রাবাড়ি থানা সভাপতি শেখ রব, সাধারণ সম্পাদক বাচ্চু খন্দকার এবং ঢাকা দক্ষিণ ও উত্তরের নেতৃবৃন্দগণ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Check Also

মসজিদে মানতে হবে ৯ নির্দেশনা

দেশজুড়ে বৈশ্বিক মহামারিকরোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করাসহ ছয়…