Home আজকের সংবাদ তাপস মেয়র থাকার যোগ্য নয়: সাঈদ খোকন
আজকের সংবাদ - সারাদেশ - জানুয়ারি ৯, ২০২১

তাপস মেয়র থাকার যোগ্য নয়: সাঈদ খোকন

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র থাকার যোগ্য নয় বলে দাবি করেছেন সংস্থাটির সাবেক মেয়র ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মোহাম্মদ সাঈদ খোকন।

তিনি বলেন, ‘তাপস ডিএসসিসির শত শত কোটি টাকা তার নিজ মালিকানাধীন মধুমতি ব্যাংকে স্থানান্তরিত করেছেন এবং সেই টাকা বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানে বিনিয়োগ করার মাধ্যমে কোটি কোটি টাকা লাভ হিসেবে নিয়েছেন।’

সাঈদ খোকন বলেন, ‘অপরদিকে অর্থের অভাবে করপোরেশনের গরীব কর্মচারীরা মাসের পর মাস বেতন পাচ্ছেন না। সিটি করপোরেশনের বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প অর্থের অভাবে বন্ধ হয়ে গেছে। এ ধরণের কর্মকাণ্ডের মধ্য দিয়ে মেয়র তাপস সিটি করপোরেশন আইন ২০০৯, ২য় ভাগের ২য় অধ্যায়ের অনুচ্ছেদ ৯ (২) (জ) অনুযায়ী মেয়র পদে থাকার যোগ্যতা হারিয়েছেন’

শনিবার দুপুরে রাজধানীর হাইকোটস্থ কদম ফোয়ারার সামনে আয়োজিত এক মাববন্ধনে উপস্থিত হয়ে তিনি এসব কথা বলেন। দক্ষিণ সিটি করপোরেশন কর্তৃক ফুলবাড়িয়া সুপার মার্কেট-২ এ পরিচালিত উচ্ছেদ অভিযানে ক্ষতিগ্রস্থ ব্যবসায়ীদের ক্ষতিপূরণ ও পুনর্বাসনের দাবিতে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

সাঈদ খোকন বলেন, তাপস মেয়র হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করার পর থেকেই দুর্নীতির বিরুদ্ধে গলাবাজি করে চলেছেন। আমি তাকে বলবো রাঘব বোয়ালের মুখে চুনোপুটির গল্প মানায় না। দুর্নীতিমুক্ত প্রশাসন গড়তে হলে সর্বপ্রথম নিজেকে দু্নীতিমূক্ত করুণ। তারপর চুনোপুটির দিকে দৃষ্টি দিন।

তিনি আরও বলেন, ফুলবাড়িয়া মার্কেটে সিটি করপোরেশন যে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করেছে, সেটা নিয়ে আমি আগেও বলেছি এটা সম্পূর্ণভাবে অবৈধ। কারণ মহামান্য আদালত কর্তৃক নিদেশিত হয়ে, ব্যবসায়ীদের বৈধ করণের আবেদন নিষ্পত্তির লক্ষ্যে আমরা করপোরেশনের বোর্ড সভায় সর্ব সম্মতিক্রমে আলাচিত মার্কেটগুলোর নকশা সংশোধন ও বকেয়া ভাড়া আদায় সাপেক্ষে বৈধ ব্যবসা পরিচালনার অনুমতি প্রদানের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করি। বোর্ড সভার সিদ্ধান্ত মোতাবেক সিটি করপোরেশনের প্রকৌশল বিভাগ নকশা সংশোধন করে এবং রাজস্ব বিভাগ ৭-৮ বছরের বকেয়া ভাড়া আদায় করে ব্যবসায়ীদের বৈধভাবে ব্যবসা পরিচালনা করার অনুমতি প্রদান করে।

সাবেক মেয়র এই উচ্ছেদকে অবৈধ আখ্যা দিয়ে বলেন, আমরা আশ্চর্যের সাথে লক্ষ্য করলাম, বিনা নোটিশে দক্ষিণ সিটি অবৈধ উচ্ছেদের মাধ্যমে বুলডোজার দিয়ে এ সমস্ত হাজার হাজার বৈধ দোকান গুড়িয়ে দিলো এবং ফলশ্রুতিতে হাজার হাজার দোকান মালিক ও কর্মচারী স্বপরিবারে পথে বসে গেল। আমি ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র হিসেবে এই অবৈধ উচ্ছেদের তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি।

খোকন বলেন, আমি ঢাকা দক্ষিণের মেয়র হিসেবে দায়িত্বভার গ্রহন করার পর পরবর্তি ৫ বছর মেয়াদে সফলতার সাথে দায়িত্ব পালন করি। আমার এই ৫ বছর মেয়াদের দৃশ্যমান যাবতীয় বাস্তবায়িত ও আমার শুরু করা কাজ বর্তমানেও চলমান উন্নয়নের বিররণ তুলে না ধরে আজ শুধু একটি দিক তুলে ধরতে চাই। তা হলো নগরীর ভৌত-অবকাঠামো ও নাগরিক সেবা নিশ্চিতসহ আমার অন্যতম লক্ষ্য ছিলো নগরীতে কর্মসংস্থান এবং ব্যাবসা বান্ধব পরিবেশ সৃষ্টির মধ্য দিয়ে নগর অর্থনীতিকে গতিশীল রাখা। এর মাধ্যমে নাগরিকদের জীবন মানের সামগ্রিক উন্নয়ন সাধন করা। যা আমাদের প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা সরকারের অন্যতম প্রতিশ্রুতি ও অঙ্গিকার। এরই ধারাবাহিকতায় আমি কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করি। ফুলবাড়িয়াসহ গুলিস্থান এলাকার বিভিন্ন দোকানদার ভাইদেরকে বৈধতা দিয়ে ব্যবসা পরিচালনা করার সুযোগ দেওয়া ছিলো এই লক্ষ্যে অন্যতম একটি পদক্ষেপ।

মানববন্ধন কয়েম শত ক্ষতিগ্রস্থ ব্যবসায়ী ও তাদের পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Check Also

সুপ্রিম কোর্টের ১২ বিচারপতি করোনায় আক্রান্ত

ঢাকা: কয়েক দিন ধরে সংক্রমণ বৃদ্ধির মধ্যে সুপ্রিম কোর্টের ১২ জন বিচারপতি করোনা আক্রান্ত হও…