Home বিনোদন নতুন প্রজন্মের শিল্পীদের জন্য তিমির নন্দী’র উদ্যোগ
বিনোদন - ডিসেম্বর ৩০, ২০২০

নতুন প্রজন্মের শিল্পীদের জন্য তিমির নন্দী’র উদ্যোগ

বিনোদন প্রতিবেদনঃ তিমির নন্দী, একাধারে একজন শব্দসৈনিক, বীর মুক্তিযোদ্ধা, সঙ্গীতশিল্পী, সুরকার, সঙ্গীত পরিচালক। গত বছর গুনী এই সঙ্গীত ব্যক্তিত্ব সঙ্গীত জীবনে চলার পথে ৫০ বছর পূর্ণ করেছেন। এই উপলক্ষ্যে তার সুরে ‘মেঘলা দু’চোখ’ নামের ১৪টি গানের একটি অ্যালবামও প্রকাশিত হয়েছে জি-সিরিজের ব্যানারে।

নতুন খবর হচ্ছে , তিমির নন্দী তার সুরে নতুন প্রজন্মের অনেক সঙ্গীতশিল্পীর কন্ঠে নতুন নতুন গান তুলে দিচ্ছেন। এরইমধ্যে দেশাত্ববোধক ও আধুনিক এই গানগুলোর রেকর্ডিং-এর কাজ শুরু হয়েছে। এ প্রসঙ্গে তিমির নন্দী বলেন, ‘মূলত বাংলাদেশ বেতারের আ লিক পরিচালক সৈয়দ মোস্তফা কামালই আমাকে নতুন প্রজন্মের শিল্পীদেরকে দিয়ে কিছু গান তৈরী করার অনুরোধ করেন। তাই বাংলাদেশ বেতারে আমার সুরে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কিছু দেশের গান এবং আধুনিক গানের রেকর্ডিং-এর কাজ শুরু করেছি।

ইতিমধ্যে কয়েকটি গান রেকর্ড হয়েছে। আরো কিছু গান রেকর্ডিং করা বাকী রয়েছে। আগামী কিছুদিনের মধ্যেই ধারাবাহিকভাবে গানগুলোর রেকর্ডিং-এর কাজ সম্পন্ন হবে। এই মহামারিতে ঘরে বসে চর্চা করার জন্য কিছু গান শিল্পীদেরকে দিয়ে দিয়েছি। রেকর্ডিং-এর দিন ধার্য্য হলে তারা এসে কন্ঠ দিবেন।’

তিমির নন্দী’র এই আয়োজনে গানগুলো লিখেছেন রঙ্গু শাহাবুদ্দীন, মো: রফিকুল হাসান, খোকন সিরাজুল ইসলাম, আয়েত হোসেন উজ্জ্বল, সালমা আক্তার। নতুন ও পুরোনো শিল্পীদের মধ্যে যারা গান গেয়েছেন এবং গাইবেন তাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছেন লীনু বিল্লাহ, মোখলেসুল ইসলাম নীলু, জীনাত রেহানা, তানভীর আলম সজীব, শাহনাজ রহমান স্বীকৃতি, ছন্দা চক্রবর্ত্তী, স্বরলিপি, সন্দীপন, রন্টি দাস, নিশীতা বড়–য়া, মুহিন, চম্পা বণিক, শাহিনা হক, রাজীব, হিমাদ্রি বিশ্বাস, প্রিয়াংকা গোপ, রেবেকা সুলতানা’সহ আরো অনেকে।

তিমির নন্দী’র ভাষ্যমতে এই প্রজন্মের মধ্যে যারা গানে ভালো করছে তাদের মধ্যে বিশেষভাবে যারা ভালো করছে তারা হলেন প্রিয়াংকা গোপ, অপু, লুইপা, অনিন্দিতা সাহা অথি, অনন্যা, টুটুল। তারা তাদের চর্চা নিয়মিত বজায় রাখলে তারা আগামীতে নি:সন্দেহে আরো ভালো করবে।

১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের পর পশ্চিমবঙ্গে চব্বিশ পরগনার মধ্যমগ্রামে তিমির নন্দী’র এক আত্মীয় দু’টি গান দিয়ে তাকে সুর করতে বলেন। সেই থেকে সুরকার হিসেবে তার কাজ শুরু। স্বাধীনতার পর ১৯৭২ সালে ঢাবায় বন্ধুদের নিয়ে ‘রজনী’ নামে একটি সাংষ্কৃতিক সংগঠন করেন। তখন বন্ধুদের লেখা অকে গানেরই সুর করেছেন। প্রথম সঙ্গীত পরিচালক হিসেবে কাজ করেন বিটিভির ধারাবাহিক নাটক ‘শংকিত পদযাত্রা’র। এই নাটকে ড. আব্দুল মতিনের কথায় ‘বাঁধন খুলে দিলাম’ তার গাওয়া এবং সুর করা, যা সেই সময়ে ভীষণ শ্রোতাপ্রিয়তা পায়।

উল্লেখ্য তিমির নন্দী’র সুরে গান গেয়েছেন আব্দুল জব্বার, সুবীর নন্দী, শাম্মী আখতার, রফিকুল আলম, আবিদা সুলতানা, জীনাত রেহানা, ইফফাত আরা নার্গিস’সহ আরো অনেকেই। ছবি : মোহসীন আহমেদ কাওছার

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Check Also

সুপ্রিম কোর্টের ১২ বিচারপতি করোনায় আক্রান্ত

ঢাকা: কয়েক দিন ধরে সংক্রমণ বৃদ্ধির মধ্যে সুপ্রিম কোর্টের ১২ জন বিচারপতি করোনা আক্রান্ত হও…