Home জাতীয় পরিচয়পত্র দেখালেই শিক্ষার্থীদের টিকা

পরিচয়পত্র দেখালেই শিক্ষার্থীদের টিকা

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, ৩১ জানুয়ারির মধ্যে ১২ থেকে ১৮ বছর বয়সী সব শিক্ষার্থী টিকা পাবে। টিকা নেওয়ার জন্য তাদের আর নিবন্ধন লাগবে না। শিক্ষার্থীর পরিচয়পত্র দেখালেই টিকা নিতে পারবে। ১২ জানুয়ারি থেকে টিকা না নেওয়া শিক্ষার্থীরা সরাসরি ক্লাস করতে পারবে না। তারা অনলাইন ও টেলিভিশনে ক্লাস করতে পারবে। কমপক্ষে এক ডোজ নিলেই শিক্ষার্থীরা সরাসরি ক্লাস করতে পারবে। গতকাল শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি।

দীপু মনি বলেন, ‘করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রনের বিস্তারের মধ্যে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা রাখার সিদ্ধান্ত হলেও টিকায় জোর দিচ্ছে সরকার। যেসব শিক্ষার্থীর স্বাস্থ্যঝুঁকি বেশি, আপাতত তাদের স্কুলে না গিয়ে অনলাইনে ক্লাসে যোগ দিতে বলছি আমরা। গত বছর সংক্রমণের যে পরিস্থিতিতে স্কুল-কলেজ ও অন্যান্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হয়েছিল, এখন সংক্রমণের হার তেমন থাকলেও টিকাদান বেড়েছে। তাই আপাতত আমরা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের চিন্তা করছি না। চলতি বছরের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘২০২১ সালে অনিশ্চিত একটা অবস্থার মধ্য দিয়ে গেছি। কিন্তু আমরা বছরের শেষে এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষা নিয়েছি। ২০২২ সালেও আমরা পাবলিক পরীক্ষাগুলো নিতে চাই। এগুলো সময়মতো হয়তো হবে না, এটাই স্বাভাবিক। আমরা আভাস দিয়েছি, বছরের মাঝামাঝি সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে পরীক্ষা নিতে পারব। এখনো আমাদের সিদ্ধান্ত সে জায়গায় আছে।’

তিনি বলেন, সারা দেশে ১২ থেকে ১৮ বছর বয়সী শিক্ষার্থীর সংখ্যা ১ কোটি ১৬ লাখ ২৩ হাজারের বেশি। তাদের মধ্যে প্রায় ৪৪ লাখ প্রথম ডোজ টিকা পেয়েছে। আর দুই ডোজ টিকা পেয়েছে ৪ লাখ ১৯ হাজারের বেশি শিক্ষার্থী। প্রথম ও দ্বিতীয় ডোজ মিলিয়ে ৪৮ লাখের ১৯ হাজারের বেশি শিক্ষার্থী করোনার টিকা পেয়েছে। আর ৭৫ লাখ ৫৪ হাজারের বেশি শিক্ষার্থী করোনার কোনো টিকা পায়নি।

দীপু মনি বলেন, ‘পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়, প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়, উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় এবং ইসলামী আরবি বিশ্ববিদ্যালয়ে মোট শিক্ষার্থী সংখ্যা ৪৪ লাখ ৩৪ হাজার ৪৫১ জন। এর মধ্যে প্রথম ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে ২৩ লাখ ২৮ হাজার ৪৬৮ জনকে। দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন ১৭ লাখ ১৩ হাজার ৩০২ জন। মোট নিবন্ধন করেছেন ২৭ লাখ ৩১ হাজার ২৮৭ জন। পাবলিক ও প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের ৯৫ ভাগের বেশি শিক্ষার্থীর টিকাদান সম্পন্ন হয়েছে। তাই জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়, উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় এবং ইসলামী আরবি বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের টিকাদান দ্রুত সম্পন্ন কীভাবে করা যায়, সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে মঙ্গলবার (আজ) বৈঠকে বসব।’ সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব আবু বকর ছিদ্দীক, কারিগরি ও মাদরাসা বিভাগের সচিব আমিনুল ইসলাম খান এবং মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক সৈয়দ মো. গোলাম ফারুক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Check Also

ড. ইউনূসের ব্যাংক হিসাব তলব

নোবেলজয়ী একমাত্র বাংলাদেশি ও গ্রামীণ ব্যাংকের প্রতিষ্ঠাতা ড. মুহম্মদ ইউনূসের ব্যাংক হিসাবে…