Home আজকের সংবাদ প্রাথমিক শিক্ষকদের জন্য সরকারের নতুন উদ্যোগ
আজকের সংবাদ - শিক্ষা - জানুয়ারি ১২, ২০২১

প্রাথমিক শিক্ষকদের জন্য সরকারের নতুন উদ্যোগ

বাংলার ডাক ডেস্কঃ শিক্ষকদের হয়রানি ও তাদের কাছ থেকে বিভিন্ন রকম সুবিধা আদায়সহ প্রাথমিকের মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগের পর দেশব্যাপী কর্মকর্তাদের বদলির সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। এক জায়গায় তিন বছরের ঊর্ধ্বে যেসব কর্মকর্তারা দায়িত্ব পালন করছেন তাদের প্রত্যেককেই বদলি করা হবে। সূত্র: বাংলা ট্রিবিউন

এ বিষয়ে জানতে চাইলে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বলেন, ‘দীর্ঘদিন একই জায়গায় থাকতে থাকতে একটা প্রভাব সৃষ্টি হয়। বিভিন্ন রকমের অভিযোগ ওঠে, বিভিন্ন অনিয়মে জড়ান কর্মকর্তারা। সে কারণে বদলির উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। সারাদেশে যেসব কর্মকর্তারা তিন বছরের বেশি একই জায়গায় রয়েছেন তাদের তালিকা চাওয়া হয়েছে। আমরা দ্রুত বদলির ব্যবস্থা নেবো।’

অভিযোগ রয়েছে, দীর্ঘদিন একই জায়গায় চাকরি করার কারণে উপজেলা/থানা শিক্ষা অফিসার এবং সহকারী শিক্ষা অফিসাররা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের হয়রানি করেন। প্রধান শিক্ষকদের কাছ থেকে বিভিন্ন সুবিধা, উপঢৌকন নেন। প্রধান শিক্ষকরা অফিসারদের হয়রানি থেকে বাঁচতে অফিসারদের নানাভাবে ম্যানেজ করেন। আবার শিক্ষা অফিসার ম্যানেজ হলেও সহকারী শিক্ষকদের অনেক সময় হয়রানি করেন প্রধান শিক্ষক। এসব কারণে বদলির উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

গত ৩ ডিসেম্বর ঢাকার কেরানীগঞ্জের একজন সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসারের বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠে তিনি ‘শাক-সবজি থেকে শুরু করে নিত্যপণ্য সবই উপহার নেন’। এই অভিযোগে ওই শিক্ষা অফিসারকে মৃদু শাস্তি দেওয়া হয়। তবে গণমাধ্যমে প্রকাশের পর বিষয়টি নিয়ে হইচই পড়ে যায়। দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে শিক্ষকরা নাম প্রকাশ না করার শর্তে গণমাধ্যমে অভিযোগ করেন শিক্ষা অফিসারদের বিরুদ্ধে।

এরই মধ্যে গত ৭ জানুয়ারি প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে অফিস আদেশ জারি করে সারাদেশের মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের তালিকা চাওয়া হয়। এতে বলা হয়, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরসহ আওতাধীন দপ্তরগুলোয় একই কর্মস্থলে তিন বছরের বেশি সময় ধরে কর্মরত কর্মচারীদের তথ্য আগামী সাত কর্মদিবসের মধ্যে নির্ধারিত ছকে পাঠাতে হবে।

নির্ধারিত ছক অনুযায়ী কর্মচারীর নাম ও পদবী, কর্মরত অফিসের নাম ও যোগদানের তারিখ, কর্মরত জেলা ও উপজেলার নাম, অনুমোদিত পদসংখ্যা এবং বিভাগীয় পর্যায়ের অফিসসহ আওতাধীন অফিসের কর্মরত কর্মচারীদের মোট সংখ্যা জানাতে হবে।

এছাড়া তিন বছরের ঊর্ধ্বে কর্মরতদের নিজ জেলা ও উপজেলা, বর্তমান পদে যোগদানের তারিখ, সরকারি চাকরিতে প্রথম যোগদানের তারিখ, সরকারি চাকরিতে প্রথম পদ, আগের দুইটি কর্মস্থলের নাম ও কর্মকালীন মেয়াদের তথ্য জানাতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Check Also

সুপ্রিম কোর্টের ১২ বিচারপতি করোনায় আক্রান্ত

ঢাকা: কয়েক দিন ধরে সংক্রমণ বৃদ্ধির মধ্যে সুপ্রিম কোর্টের ১২ জন বিচারপতি করোনা আক্রান্ত হও…